অপমৃত্যু….Bangla Sad love story

অপমৃত্যু….
আমি শাওন।
ইন্টার ফার্স্ট ইয়ার এ পড়ি।
কলেজে তেমন যাই না।খুব ভালো ছাত্র ও না।সিগেরেট খাই খুব।তো একদিন এলাকার দোকানে বসে চা খাচ্ছিলাম দেখি রাস্তা দিয়ে একটি মেয়ে হেটে যাচ্ছে।মেয়েটির চেহারা দেখেই অনেক ভালো লেগেছিলো।আগে অনেক ঈভটিজিং করেছি কিন্তু এই মেয়েটিকে দেখার পরই মনে হলো যে মনে হয় জীবনে প্রথম বার সত্যি কাউকে পছন্দ হল।আমি মেয়েটিকে ফলো করতে লাগলাম।বাড়ি চিনলাম।খোজ খবর নিয়ে জানতে পারলাম অনেক ভদ্র মেয়ে।নাম তানিয়া ।আমি তখন থেকেই পড়া শুরু করলাম।ভগবানের কাছে বলতাম ভগবান আমার সাথে যেনো মেয়েটির বিয়ে হয়।আমি সিগেরেট ও ছেড়ে দিছি,কলেজেও প্রতিদিন যাওয়া শুরু করলাম,ভালো মত লেখাপড়া শুরু করলাম।প্রতিদিন মেয়েটির বাড়ির সামনে গিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতাম।তানিয়াও হয়ত বুঝতে পেরেছে।তো একদিন কলেজের বাইরে দারিয়ে আছি হঠাত তানিয়া এসে বলল”এই যে আপনার সমস্যা কী?আমি ওইরকম মেয়ে না,আমার পিছু ছেড়ে দিন প্লিজ”।আমি বললাম “তানিয়া আমি তোমাকে দেখার পড়,সকল খারাপ কাজ পরিত্যাগ করেছি,পড়া শুরু করেছি,আমি শুধু তোমাকে পেতে চাই” তানিয়া কিছু না বলে চলে গেল।আমি ভালো মতই লেখাপড়া চালিয়ে যাচ্ছিলাম।দেখতে দেখতে বিশ্ববিদ্যালয় জীবণ শুরু।তানিয়া যেই বিশ্ববিদ্যালয়টি তে ভর্তি হল আমিও সেখানেই ভর্তি হলাম,কিন্তু ওর সাথে কথা বলতাম না।দেখতে দেখতে বিশ্ববিদ্যালয় জীবণ শেষ।বাবার ব্যাবসায় মন দিলাম ।এরপর বাবা-মাকে অনেক বুঝিয়ে তানিয়ার বাসায় প্রস্তাব পাঠালাম।তানিয়ার বাবা-মাও আমাকে পছন্দ করল।এরপর আমাকে আর তানিয়ার বিয়ের দিন তারিখ সব ঠিক হল।তানিয়াও খুব খুশি ছিলো।বিয়েও ঠিক মতই হলো।বাড়ি ফেরার পথে ,,,,,,,,,আমাদের গাড়ি একটি ট্রাক এর সাথে ধাক্কা।।।।।।।।।আমি, অনেক আহত হই,,,,কিন্তু আমার তানিয়া যে ওই সময়ই আমাকে ছেড়ে বহুদুরে চলে যায়।হাস্পাতালে আমাকে নেয়া হলে আমি কয়েকদিন এর মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠি।আমি তখনো জানতাম না যে তানিয়া আর নেই।আমার জ্ঞ্যান ফিরলেই আমি তানিয়াকে খুজি কিন্তু আমার বাবা মা কাদছিলো আমি জিজ্ঞেস করলাম তানিয়া কই?মা কাদতে কাদতে বলল তানিয়া আর নেই।।।।।।।।আমি তখনই আবার জ্ঞ্যান হারাই।জ্ঞ্যান ফিরার পর আমায় বাসায় নিয়ে আসা হয়।আমার পাশে আজ সবাই আছে কিন্তু নেই আমার সেই ভালোবাসার মানুষটি।আমি এরপর অনেক আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলাম পরে বাবা-মার কথা ভেবে আর করিনি।
কিন্তু মরে গেলেও হয়ত শান্তি পাওয়া যেত,আমি যে এক মুহুর্ত তানিয়াকে ছাড়া স্থির থাকতে পারছি না।
আমাকে ভালো মানুষ বানিয়ে চলে গেল আমায় ছেড়ে
.
.
বি:দ্র: এইরকম অনেকেই তাদের ভালোবাসার মানুষটিকে হারিয়ে ফেলে।
অনেকে আত্মহত্যা করে আবার অনেকে তাদের ভালোবাসার মানুষটির সৃতি নিয়েই বেচে থাকে।